এপ্রিলেও ভোগাবে গরম, আছে ঝড়-বন্যার পূর্বাভাসও

এপ্রিলেও ভোগাবে গরম, আছে ঝড়-বন্যার পূর্বাভাসও

মার্চ মাসজুড়ে চৈত্রের খড়তাপে অতিষ্ট ছিল জনজীবন। পুরো দেশজুড়ে ছিল অস্বস্তির আবহ। ছিল টানা তাপপ্রবাহ। তাপমাত্রা উঠেছিল ৩৯.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত। মাসের শেষভাগে বৃষ্টি কিছুটা স্বস্তি নিয়ে এলেও সরাদেশে এর সুফল মেলেনি। দেশের একাংশে বৃষ্টি হলেও আরেক অংশে শুষ্ক আবহাওয়ার সঙ্গে অব্যাহত ছিল গরম। এতে মানুষের অস্বস্তি যেমন বেড়েছে, তেমনি ক্ষতি হয়েছে ফসলের।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস বলছে, মার্চের চেয়েও তীব্র তাপদাহ আসতে পারে এপ্রিলে। একইসঙ্গে বজ্রপাত, শিলাবৃষ্টিসহ কালবৈশাখী ঝড় ও নিম্নচাপ, ঘুর্ণিঝড় এবং মাস শেষে বন্যার পূর্বাভাসও দিয়েছে আবহাওয়া পর্যবেক্ষণকারী এ সংস্থা।

বৃহস্পতিবার বিকালে অনুষ্ঠিত আবহাওয়া পর্যবেক্ষণকারী বিশেষজ্ঞ কমিটির সভায় এসব তথ্য উঠে আসে। সভায় বিশেষজ্ঞরা বৈশ্বিক আবহাওয়া পর্যবেক্ষণকারী বিভিন্ন সংস্থার তথ্য, আবহাওয়ার উপাত্ত, ঊর্ধ্বাকাশের আবহাওয়া বিন্যাস, বায়ুমণ্ডলের আবহাওয়া মানচিত্র, জলবায়ুর অবস্থা এবং এল নিনো/লা নিনার বিশ্লেষণ করে এপ্রিল মাসের এ পূর্বাভাস তৈরি করেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতরের উপপরিচালক কাওছার পারভীন।

মার্চে স্বাভাবিকের তুলনায় ৭৯.৬ শতাংশ কম বৃষ্টিপাত হয়েছে জানিয়ে দীর্ঘমেয়াদী এ পূর্বাভাসে বলা হয়, এপ্রিল মাসে স্বাভাবিকের সমপরিমাণ বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। মাসজুড়ে ৫-৭ দিন বজ্র ও শিলাবৃষ্টিসহ হালকা বা মাঝারি ধরনের কালবৈশাখী ঝড় হতে পারে। সেইসাথে এ মাসে বঙ্গোপসাগরে একাধিক নিম্নচাপ তৈরি হতে পারে, যা ঘূর্ণিঝড়েও রূপ নিতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গরমের বিষয়েও তেমন সুখবর মেলেনি মাসিক আবহাওয়া পূর্বাভাসে। সূত্র বলছে, মার্চের তাপমাত্রাকেও ছাড়াতে এপ্রিলে। ১টি তীব্র তাপপ্রবাহ হতে পারে দেশের পশ্চিমাঞ্চলে। যার তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস অতিক্রম করতে পারে। এছাড়া দেশজুড়ে একাধিক মৃদু বা মাঝারী তাপপ্রাবাহের শঙ্কাও দেখেছেন আবহাওয়া বিশ্লেষকরা।

মাসের শেষাংশে সবচেয়ে বড় শঙ্কার খবর দিয়েছেন আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা। জানিয়েছেন, দেশের উত্তর পূর্বাঞ্চল ও পাশ্ববর্তী দেশ ভারতের ওইসব অঞ্চলে এপ্রিলের শেষভাগে ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে। যার প্রভাবে ওইসব এলাকার উজানে আকস্মীক বন্যা হতে পারে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আবহাওয়াবিদ কাওছার পারভীন বলেন, মার্চে স্বাভাবিক আবহাওয়ায় অনেক বিচ্যুতি আমরা লক্ষ্য করেছি। সবচেয়ে বেশি উল্লেখ করার বিষয় হলো সারাদেশে বৃষ্টি না হয়ে এবার সিলেট বিভাগ ও সিলেট বিভাগ সংলগ্ন ঢাকা বিভাগের কিছু এলাকায় বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে। পাশাপাশি শিলাবৃষ্টি ও বজ্রপাত বাড়ার প্রবণতাও লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

এপ্রিলেও এমন পরিস্থিতি অব্যাহত থাকতে পারে। কোথাও বেশি বৃষ্টিতে বন্যার পরিস্থিতি হতে পারে আবার কোথাও তীব্র গরমে নাকাল হওয়ার দশা তৈরি হতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদফতরের এ উপপরিচালক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *